বিষন্নতার জন্য কারা বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ prieopathak (প্রিয় পাঠক)

বিষন্নতার জন্য কারা বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ?

বিষণ্ণতা

বিষন্নতার জন্য কারা বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ?

পৃথিবীতে এমন কোন দেশ নাই যেখানে এ রোগটি ব্যাপক আকারে বিস্তার লাভ করেনি। শিশু থেকে বৃদ্ধ,ধনী থেকে গরীব,শিক্ষিত-অশিক্ষিত,নারী কিংবা পুরুষ সবাই এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে। শরীরে ডোপামিন আর সেরোটনিন নামের নিউরোট্রান্সমিটারের ঘাটতির কারনে এই বিষন্নতা রোগে পেয়ে বসতে পারে আপনাকে। সেরোটনিন হোল মানুষের সুখের চাবি। সেরোটোনিন নেই তো সুখও নেই । মনোবিদ ডা: মেখলা সরকার বিবিসিকে বলছেন বিষণ্ণতা মানুষের মনের একটি স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া। একজন মানুষের কোনো বিষয়ে প্রত্যাশা পূরণ না হওয়া বা এ ধরণের নানা কারণে মন বিষণ্ণ হতেই পারে। সাধারণত দীর্ঘস্থায়ী। বিষণ্নতা রোগে মন খারাপ, কোনো কাজে আগ্রহের অভাব, কিছু শারীরিক লক্ষণ কমপক্ষে দুই সপ্তাহ থাকে।

ক. মেয়েদের বিষণ্ণতা আক্রান্ত হওয়ার হার বেশি যা পুরুষের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ। বিশেষভাবে দেখা যায় যে নারীদের ঘরে ছোট সন্তান আছে, তাদের বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হওয়ার হার বেশি।

খ. যাদের টিনএজ বয়সের আগে বাবা অথবা মা, অথবা উভয় মারা গিয়েছেন। তাদের বিষণ্ণতার সম্ভাবনা বেশি। বিশেষ করে যদি কোন মেয়েদের ১৩ বছরের আগে বাবা-মাকে হারায় তারা বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক।

গ. সামাজিকভাবে যাদের বন্ধু এবং আপনজন কম এবং পারিবারিক সাপোর্ট নেই, তাদের বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশি।

ঘ. দীর্ঘদিনের বেকারত্ব বিষণ্ণতার ঝুঁকি বাড়ায় ।

ঙ. যাদের জীবনে একের অধিক নেতিবাচক ঘটনা আছে বা একাধিক সম্পর্ক বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে তাদের ঝুঁকি বেশি।

চ. যাদের বাবা অথবা মা বা বংশের কারো বিষণ্ণতা আছে তারা অধিক ঝুঁকিপূর্ণ।

ছ.  যারা শহরে থাকে এবং অধিক আত্মকেন্দ্রিক তাদের বিষণ্নতা বেশি হয়।

বিষন্নতার ক্ষেত্রে জানা খুবই জরুরী, একই পরিস্থিতি বা ঝুঁকি সবাইকে বিষণ্ণ করে না। ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে বিষন্নতার কারণ, তীব্রতা, ফলাফল ও চিকিৎসা  ভিন্ন। সমাজের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে নিজের ও আশপাশের মানুষের জন্য আমাদের বিষণ্ণতার মূল বিষয়গুলো জানা প্রয়োজন। কিন্তু মাঝারি, তীব্র ও কখনো মৃদু বিষন্নতার  ক্ষেত্রেও একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তির সাহায্য প্রয়োজন হতে পারে। দিন দিন পৃথিবীতে এই বিষন্নতা রোগটি বাড়ছে, জীবনযাত্রা দিনকে জটিল থেকে জটিল হয়ে ওঠাচ্ছে। এর জন্যে পৃথিবী জুড়ে এন্টিডিপ্রেসিভ ড্রাগের বাজারও চড়চড় করে বাড়ছে।

বিষন্নতার জন্য কারা বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ?

প্রিয় পাঠক

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *